Content on this page requires a newer version of Adobe Flash Player.

Get Adobe Flash player


NEWS
সকল নিসচা কর্মিসহ সারা দেশবাসীকে ইলিয়াস কাঞ্চনের ঈদ শুভেচ্ছা
জুন ২৬, ২০১৭ নিরাপদনিউজ : ঈদ উল ফিতর উপলক্ষে নিরাপদ সড়ক চাই এর কর্মি এবং বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বের মুসলমানদের প্রতি শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ জানিয়েছেন নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের চেয়ারম্যান জনপ্রিয় চিত্র নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। একই সঙ্গে.........
২২ অক্টোবরকে ‘জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস’ ঘোষণা: ইলিয়াস কাঞ্চনের ধন্যবাদ জ্ঞাপন
০৫ জুন ২০১৭, নিরাপদ নিউজ : ২২ অক্টোবরকে ‘জাতীয় নিরাপদ সড়ক দিবস’ ঘোষণা করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। আজ থেকে ২৪ বছর আগে মর্মান্তিক এক সড়ক দুর্ঘটনায় চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনের স্ত্রী জাহানারা কাঞ্চনের অকাল মৃত্যুর মধ্যদিয়ে...........
দুর্ঘটনার মূল কারণ চিহ্নিত করে উপশমের উদ্যোগ নিতে হবে: মিরপুরে ইলিয়াস কাঞ্চন
লিটন এরশাদ, ২৫ মে ২০১৭, নিরাপদনিউজ: নিরাপদ সড়ক বাস্তবায়নে সর্বস্তরের জনগণের মাঝে সতেচনতা তৈরি হতে হবে। শুধুমাত্র চালক ও যানবাহনকে দোষারোপ করে সড়ক দুর্ঘটনার দায়ভার............
গতি কমাও, জীবন বাচাঁও শিরোনামে জাতিসংঘের সড়ক নিরাপত্তা কর্মসূচি সমাপ্ত
লিটন এরশাদ/ফারিহা ফাতেহ, ১৬ মে ২০১৭, নিরাপদনিউজ: সড়ক দুর্ঘটনাজনিত প্রাণহানী ও ক্ষয়ক্ষতিতে বিশ্বব্যাপী সকলেই গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। আমাদের দেশেও প্রতিবছর.........
দাগনভূঞায় সড়ক দুর্ঘটনা রোধে ইলিয়াস কাঞ্চনের প্রচারণা: ‘সড়ক নিরাপত্তা সপ্তাহ’ পালন
মে ১৪,২০১৭ নিরাপদ নিউজ : ফেনীর দাগনভূঞায় সড়ক দুর্ঘটনারোধে সচেতনতামূলক প্রচারণা চালিয়েছেন নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন। নিসচা দাগনভূঞা......
জাতিসংঘ ঘোষিত ‘সড়ক নিরাপত্তা সপ্তাহ ২০১৭’ উপলক্ষে নিরাপদ সড়ক চাই’র উদ্যোগে র‌্যালী
লিটন এরশাদ, ১১ মে ২০১৭, নিরাপদ নিউজ : জাতিসংঘ কর্তৃক ৪র্থ বারের মত ‘বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)’ এর তত্ত্বাবধানে বিশ্বের প্রায় প্রতিটি দেশেই ‘সড়ক নিরাপত্তা সপ্তাহ ২০১৭’ পালিত হচ্ছে। গত ৮ মে থেকে এই ........
বিশ্বাস করতে পারছি না মিজু আহমেদ নেই: নিসচা আয়োজিত স্মরণসভায় বক্তারা
০২ এপ্রিল ২০১৭, নিরাপদনিউজ : আজ ০২ এপ্রিল ২০১৭, রোজ রোববার নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) এর আয়োজনে সকাল ১১ টায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) এর সাগর-রুনি মিলনায়তনে নিসচা’র প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত বিশিষ্ট অভিনেতা মিজু আহমেদ স্মরণে দোয়া মাহফিল ও স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন নিসচার আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মিরাজুল মইন জয়। এরপর মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়। এরপর শুরু হয় স্মৃতিচারণমূলক আলোচনাসভা। মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া ও কর্মময় জীবনের উপর স্মৃতিচারণমূলক আলোচনায় অংশ নেন বিশিষ্ট সাংবাদিক ও পরিচালক রফিকুজ্জামান, বিশিষ্ট পরিচালক শেখ নজরুল ইসলাম, বিশিষ্ট অভিনেত্রী অরুণা বিশ্বাস, চিত্রনায়ক জায়েদ খান, নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের পক্ষ থেকে ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ এহসান-উল হক কামাল, মহাসচিব শামীম আলম দীপেন, যুগ্ম মহাসচিব বেলায়েত হোসেন খান নান্টু, যুগ্ম মহাসচিব লায়ন গনি মিয়া বাবুল, অর্থ সম্পাদক নাসিম রুমি, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম আজাদ হোসেন, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মিরাজুল মইন জয়, প্রচার সম্পাদক রিয়াজ উদ্দিন রিয়াজ ও কার্যনির্বাহী সদস্য আবু সাঈদ খান।এই স্মরণ সভায় সভাপতিত্ব করেন মরহুমের প্রিয়বন্ধু নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন নিসচার যুগ্ম মহাসচিব লিটন এরশাদ। চলচ্চিত্র জগতে ইলিয়াস কাঞ্চনের খুব কম সংখ্যক বন্ধু আছেন তাদের ভেতর মিজু আহমেদ অন্যতম বন্ধু ছিলেন। মিজু আহমেদ একাধারে অসংখ্য সিনেমাতে ইলিয়াস কাঞ্চনের সাথে কাজ করেছেন সেই সাথে নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে শক্তিমান চলচ্চিত্র অভিনেতা মিজু আহমেদ নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছিলেন। দেশ থেকে সড়ক দুর্ঘটনা রোধে সামাজিক এই আন্দোলনে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন পদে থেকে তিনি কার্যক্রম চালিয়ে গেছেন এবং সংগঠনকে গতিশীল করার অবদান রেখেছেন। বর্তমানে তিনি নিসচা’র উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে নিরাপদ সড়ক চাই একজন দক্ষ ও সফল যোদ্ধাকে হারিয়েছে, চলচ্চিত্র হারিয়েছে একজন গুণী অভিনেতাকে। ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, ক্রমবর্ধমান সড়ক দুর্ঘটনারোধে মিজু আহমেদ নিজেকে আত্মনিবেদিত রেখেছিলেন। এই সংগঠনের সকল কর্মকান্ডে সর্বাঘ্রে অবস্থান ছিল তাঁর। মিজু আহমেদ ছিলো আমার খুব কাছের একজন বন্ধু, আজ আমি আমার একজন বন্ধুকে হারালাম, একজন সহযোদ্ধাকে হারালাম আমি। নিসচা হারালো একজন দক্ষ যোদ্ধাকে। বক্তারা মিজু আহমেদের বর্ণাঢ্য কর্মময় জীবনের বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা করেন। আলোচনায় উঠে আসে ব্যক্তিজীবনে ধর্মপরায়ণ, আপোষহীন, স্পষ্টবাদী, পরোপকারী, ন্যায়-নীতির প্রশ্নে অবিচল থাকা, জীবনযুদ্ধে সাহসিকতার পরিচয় দেয়া, কর্মজীবনে সহশিল্পী হিসেবে তাঁর মানবিক গুণাবলীর প্রতিফলনের কথা, দৃঢ় মনোবলের অধিকারী, নেতৃত্বে সফলতা অর্জন, চলচ্চিত্র শিল্পের ভূত-ভবিষ্যত নিয়ে ভাবনা- সর্বোপরি কাজে সিনসিয়ার থাকা এবং পরিবারের প্রতি নিবেদিত থেকে সবার হৃদয় জয় করে নিয়েছেন। ইলিয়াস কাঞ্চন তাঁর বক্তব্যে বলেন, চলচ্চিত্রে আমার হাতে গোনা কয়েকজন বন্ধুর মধ্যে মিজু আহমেদ অন্যতম। মিজুর চলচ্চিত্রে যাত্রা শুরু ১৯৭৭ সালে, আমারও চলচ্চিত্রে যাত্রা শুরু ঐ সালেই। ছবি রিলিজের ক্ষেত্রে আমার ছবি ৭৭ সালে মুক্তি পেলেও মিজু অভিনীত প্রথম ছবি মুক্তি পায় ১৯৭৮ সালে। ঐ যে আমাদের পথচলা তা গত ২৭ মার্চ তাঁর আকস্মিক মৃত্যুতে থেমে গেল। কিন্তু অত্যান্ত দুঃখের বিষয় মৃত্যুর ঠিক মাস দুয়েক আগে ‘ও’ খুব ঘন ঘন নিসচা অফিসে আসছিল। আলাপ হতো নানা বিষয়ে। একদিন অফিস থেকে যাওয়ার সময় বললো ‘৫ এপ্রিল’ তোকে একটা গুরুত্বপূর্ণ খবর জানাবো। চলচ্চিত্র শিল্পকে ধ্বংসের হাত থেকে বাঁচাতে মিজু সবসময় ভাবতেন। জানি না মিজু ‘৫ এপ্রিল’ আমাকে কি বলতে চেয়েছিল। আর তা আমার শোনাও হবে না। তবে ধারণা করতে পারি হয়তো গুরুত্বপূর্ণ কোন বিষয়ের কথাই বলতো ও। কারণ ‘ও’ সারাক্ষণই চলচ্চিত্রের বর্তমান দুরাবস্থায় চিন্তিত ছিল। মিজুর সঙ্গে আমার সর্বশেষ কথা হয় এফডিসিতে। ৩ এপ্রিলের চলচ্চিত্র দিবসের প্রস্তুতি কমিটির সভায় গত ২৩/২৫ মার্চ আমরা একসাথে সভায় মিলিত হই। একপর্যায়ে মিজু সভা থেকে চলে যায়। আমি টের পাইনি। সভা শেষে দেখলাম অফিস এসে নামাজ পড়তে গেলে ওয়াক্ত নাও থাকতে পারে। তাই রিস্ক না নিয়ে প্রযোজক সমিতিতে নামাজ পড়তে যাই। গিয়ে দেখি মিজু জুতা-মোজা পড়ছে। বললাম নামাজ পড়বে না। বললো, আমি পড়ে ফেলেছি তুই পড়। এটাই ছিল মিজুর সাথে আমার শেষ কথা। মিজু আহমেদ আজ আমাদের মাঝে নেই, কিন্তু রেখে গেছেন কর্ম এবং আদর্শ। আমরা তাঁর কর্মের মাধ্যমে তাঁকে বাঁচিয়ে রাখবো যুগ যুগ ধরে। সবাই মিজু আহমেদের পরিবারের জন্য দোয়া করবেন। মিজুর আত্মার মাগফেরাত কামনায় দোয়া করবেন। পরিচালক শেখ নজরুল ইসলাম বলেন, মিজুর চলচ্চিত্রে যাত্রা শুরু আমার ‘নদের চাঁদ’ ছবি দিয়ে। কিন্তু আমার ছবিটি শেষ হওয়ার পরে সেন্সর সার্টিফিকেট পেয়েও একবছর লাগে ছবিটি মুক্তি পেতে। তার আগে মুক্তি পেয়ে যায় নারায়ণ ঘোষ মিতার ‘তৃঞ্চা’ ছবিটি। যাই হোক মিজু ছিল আমার আত্মার আত্মীয়। ও সবসময় যে কোন কাজে আমার পরামর্শ চাইতো। দোয়া নিত। এমনকি প্রথম ছবি প্রযোজনার সময় পরিচালক হিসেবে আমার নাম চূড়ান্ত করে রেখেছিল। কিন্তু ব্যস্ততার কারণে ছবিটি আমার করা হয়নি। মিজু নেই কিন্তু তাঁর কর্ম আমাদের অনুপ্রেরণা যোগাবে। প্রয়াত নারায়ণ ঘোষ মিতার তৃঞ্চা চলচ্চিত্র দিয়ে ১৯৭৭ সালে মিজু আহমেদের চলচ্চিত্রে যাত্রা শুরু হলেও তাঁর প্রথম ছবি হচ্ছে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত পরিচালক শেখ নজরুল ইসলামের ‘নদের চাঁদ’। তিনি দুইবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন কাজী হায়াতের ‘ত্রাস’ এবং ‘ওরা আমাকে ভাল হতে দিলনা’ চলচ্চিত্রের জন্য। ৮০০ এর মত চলচ্চিত্রে অভিনয় করেন। ছবি প্রযোজনায়ও ছিলেন সফল। বন্ধু রাজীবকে (প্রয়াত) নিয়ে গড়ে তোলেন প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ফ্রেন্ডস মুভিজ। ভিন্ন ভিন্ রাজনৈতিক আদর্শের সৈনিক হয়েও পাশাপাশি টেবিলে বসে সফল চলচ্চিত্র ব্যবসায়ী হিসেবে প্রতিষ্ঠা পান। কখনই তাদের রাজনৈতিক মতাদর্শ তাদের ব্যবসায়িক এবং বন্ধুত্বের মধ্যে প্রভাব ফেলতে পারে নি। ঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক মিজু আহমেদ একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। ৮ নং সেক্টরের অধীন কুষ্টিয়ায় তিনি মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন। মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক জেনারেল এম এ জি ওসমানী স্বাক্ষরিত সনদপত্রও শোভা পাচ্ছে মিজু আহমেদের বসার ঘরের দেয়ালে। মৃত্যুও তাঁকে এখন ফ্রেমে বাঁধাই করে ফেললো।
আগামীকাল নিসচা’র প্রতিষ্ঠাতা সদস্য বিশিষ্ট অভিনেতা মিজু আহমেদ স্মরণ সভা
০১ এপ্রিল ২০১৭, নিরাপদ নিউজ : নিরাপদ সড়ক চাই’র প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত বিশিষ্ট অভিনেতা মিজু আহমেদ স্মরণে দোয়া মাহফিল ও স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হবে আগামীকাল ০২ এপ্রিল ২০১৭, রোজ রোববার । নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) এর আয়োজনে সকাল ১১ টায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) এর সাগর-রুনি মিলনায়তনে এই দোয়া মাহফিল ও স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হবে। উক্ত আয়োজনে মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া ও কর্মময় জীবনের উপর স্মৃতিচারণমূলক আলোচনায় অংশ নেবেন বাংলা চলচ্চিত্রের সবার প্রিয় ‘মিয়া ভাই’ বলে খ্যাত চলচ্চিত্র প্রযোজক ও প্রদর্শক কিংবদন্তী অভিনেতা ফারুক, চলচ্চিত্র গবেষক অনুপম হায়াৎ, বিশিষ্ট সাংবাদিক ও পরিচালক রফিকুজ্জামান, বিশিষ্ট পরিচালক শেখ নজরুল ইসলাম, বিশিষ্ট অভিনেত্রী নূতন, বিশিষ্ট সাংবাদিক ইমরুল শাহেদ, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার ও মহাসচিব বদিউল আলম খোকন, চলচ্চিত্র প্রযোজক, পরিচালক ও ফাইট ডিরেক্টর আরমান, নৃত্য পরিচালক মাসুম বাবুল, বিশিষ্ট অভিনেত্রী অরুণা বিশ্বাস, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সহ সভাপতি ওমর সানী ও সাধারণ সম্পাদক অমিত হাসান, চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মিশা সওদাগার, চিত্রনায়ক জায়েদ খানসহ চলচ্চিত্র শিল্পের আরও অনেকে। এই স্মরণ সভায় সভাপতিত্ব করবেন মরহুমের প্রিয়বন্ধু নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। উল্লেখ্য, গত ২৭মার্চ সোমবার দিনাজপুরের স্বপ্নপুরীতে নতুন একটি ছবির শুটিং এর জন্য ট্রেনে রওয়ানা দেন এই অভিনেতা । কমলাপুর স্টেশন থেকে ট্রেন ছাড়ার পর তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হন। পরে বিমানবন্দর স্টেশনের নিকট ট্রেন পৌঁছলে সেখান থেকে হাসপাতালে নেওয়ার আগেই তিনি মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন। জানা গেছে, ট্রেনেই মিজু আহমেদ এর হার্ট অ্যাটাক হয়। এসময় ট্রেনে কর্তব্যরত চিকিৎসক তার পালস পরীক্ষা করে তার হার্টবিট পাননি।
খ্যাতিমান অভিনেতা মিজু আহমেদ এর মৃত্যুতে নিসচা কর্মিদের শোক প্রকাশ
মার্চ ২৮, ২০১৭ নিরাপদনিউজ: শক্তিমান অভিনেতা মিজু আহম্মেদ এর মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন সহ কার্যকরি কমিটির নেতৃবৃন্দ নিসচা’র ভাইস চেয়ারম্যান সৈয়দ এহসান-উল হক কামাল, মহাসচিব শামীম আলম দীপেন, যুগ্ম মহাসচিব লিটন এরশাদ, সাদেক হোসেন বাবুল, বেলায়েত হোসেন খান নান্টু, লায়ন গনি মিয়া বাবুল, অর্থ সম্পাদক নাসিম রুমি, সাংগঠনিক সম্পাদক এস এম আজাদ হোসেন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুর রহমান, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক মিরাজুল মইন জয় ,নিসচার প্রশিক্ষণ সম্পাদক ফারিহা ফাতেহ, কার্যনির্বাহী সদস্য কামাল হোসেন খান, কার্যনির্বাহী সদস্য সুরাইয়া রহমান মনি, কার্যনির্বাহী সদস্য আনারুল হক, আজীবন সদস্য হুমায়ূন কবির, সাধারণ সদস্য বেবী ইসলাম, শেখ কবিরুল ইসলাম, রাজা মান্নান প্রমুখ।এছাড়াও সারাদেশ ও বিদেশ থেকে নিসচা শাখা কমিটির নেতৃবৃন্দ শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছে (শোক প্রকাশ অব্যাহত রয়েছে)। নিসচা চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন তার শোক বার্তায় জানান, নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলন একজন নিবেদিত প্রাণ কর্মীকে হারিয়েছে। নিরাপদ সড়ক আন্দোলনকে কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছে দিতে একজন নিবেদিত প্রাণ কর্মী হিসেবে কাজ করেছেন মিজু আহমেদ। তার মৃত্যুতে যে শূণ্যতা তৈরী হলো এ শূন্যতা কোনদিনই পূরণ হবার নয়। তিনি মিজু আহমেদের কর্মময় জীবনের অসমাপ্ত কাজ বিশেষ করে নিরাপদ সড়ক আন্দোলনকে আরও গতিশীল করে নেয়ার উপর গুরুত্ব আরোপ করেন।এবং মিজু আহমেদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন ও শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান সেই সাথে দেশবাসীর কাছে দোয়া কামনা করেন। এদিকে মিজু আহমেদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে নিরাপদ সড়ক চাই বগুড়া জেলা কমিটির পক্ষ থেকে শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন বগুড়া জেলা কমিটির সাধারন সম্পাদক ও নিরাপদ নিউজের সাব-এডিটর মো: রকিবুল ইসলাম সোহাগ। সদস্য রায়হান আহমেদ রানা। জামিনুল রহমান জামিন, আমজাদ হোসেন মিন্টু প্রমুখ। নিসচা সাদুল্যাপুর উপজেলা শাখার পক্ষ থেকে শোক জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন আহবায়ক খোরশেদ আলম, যুগ্ন-আহবায়ক মাসুদ মো. আনোয়ার হোসেন, জাহিদ খাঁন, নিসচা সদস্য সচিব ও নিরাপদ নিউজের প্রতিনিধি তোফায়েল হোসেন জাকির, সম্মানিত সদস্য শামীম সরদার, রানু মিয়া, মিজানুর রহমান, সজল কুমার, পলাশ চন্দ্র, নিসাদ, রাজ্জাক, সাইফুল ইসলাম, লিমন, মতলুবর, নুরুন্নবী, সাগর ও দুলু প্রামানিক। এদিকে সিলেট গোলাপগঞ্জ নিরাপদ নিউজের প্রতিনিধি নোমন মাহফুজ ও বদরুল আলম শোক জানিয়েছেন। আরো শোক জানিয়েছেন বগুড়া মহাস্থান প্রতিনিধি জিআর শিপন, এসআই সুমন। ধুনট প্রতিনিধি লিখন, ধামুরহাট প্রতিনিধি আবু মুসা স্বপন। এছাড়াও দেশের বাইরে সৌদি আরব আফিফ প্রতিনিধি সুমন চৌধুরী, যুক্তরাজ্য নিরাপদ সড়ক চাই কমিটির সভাপতি সেলিম আহম্মেদ চৌধুরী, সৌদি আরব মদিনা প্রতিনিধি মো: আলী রাশেদ মিজু আহমেদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে বিবৃতি পাঠিয়েছেন।মিজু আহমেদের মৃত্যুতে আরো শোক জানিয়েছে চট্টগ্রাম, খুলনা রংপুর,বরিশাল, সিলেট, রাজশাহীর নিসচা কর্মিবৃন্দ।
কিশোরগঞ্জে সব হীরার জন্ম হয়: প্রধানমন্ত্রী
মার্চ ২৭, ২০১৭ নিরাপদনিউজ : গতকাল রবিবার ২৬মার্চ স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসে বঙ্গভবনে এক সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে অত্যন্ত হৃদ্যতাপূর্ণ পরিবেশে আলাপচারিতায় মেতে ওঠেন বঙ্গকন্যা দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনা ও নিরাপদ সড়ক চাই- এর চেয়ারম্যান জননন্দিত তারকা চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন। আলাপচারিতায় দু’জনকে বেশ হাস্যোজ্জলভাবে কথা বলতে দেখা যায় এবং চিত্রনায়ক ইলিয়াস কাঞ্চনকে দেখেই জননেত্রী শেখ হাসিনা প্রথমে ধন্যবাদ জানান এবং দেশের সড়ক দুর্ঘটনারোধে সামাজিক আন্দোলন নিরাপদ সড়ক চাই- এর কর্মকান্ডে বিশেষ অবদান রাখায় ভূয়সী প্রশংসা করেন। এসময় চিত্র নায়ক ইলিয়াস কাঞ্চন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে সহযোগিতা এবং দোয়া কামনা করেন। আলাপচারিতায় একসময় ইলিয়াস কাঞ্চন হাসিমুখে বলেন, আমি কিন্তু কিশোরগঞ্জের ছেলে তখন প্রধানমন্ত্রীও হাস্যোজ্জলমুখে বলে ওঠেন হ্যাঁ আমি জানি কিশোরগঞ্জে সব হীরার জন্ম হয়। গতকাল রোববার বিকেল পৌনে ৫টায় বঙ্গভবন প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত সম্বর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগত অন্যান্য অতিথিদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন সে সময় ইলিয়াস কাঞ্চনের সাথে প্রধানমন্ত্রীর এসব কথা হয় । ইলিয়াস কাঞ্চন বলেন, বঙ্গভবন প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত সম্বর্ধনা অনুষ্ঠানে তিনি অংশগ্রহণ করেন এসময় প্রধানমন্ত্রী আমন্ত্রিত অতিথিদের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ করার সময় সেখানে উপস্থিত কিশোরগঞ্জের আওয়ামী লীগ নেতা কর্মিরা ইলিয়াস কাঞ্চনকে সাথে করে প্রধানমন্ত্রীর কাছে যান। প্রথমে সালাম বিনিময়ের পর প্রধানমন্ত্রী নিজেই আগ্রহ নিয়ে ইলিয়াস কাঞ্চনের কাছে এসে জিজ্ঞাসা করেন আপনি কেমন আছেন- এরপর তিনি ইলিয়াস কাঞ্চনকে ধন্যবাদ জানান সড়ক দুর্ঘটনারোধে কাজ করার জন্য। সৌহার্দ্যপূর্ণ আলাপচারিতায় আন্তরিকতার সাথে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিসচা’র কার্যক্রমের ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, আপনি (ইলিয়াস কাঞ্চন) বেশ ভালো কাজ করছেন এবং নিষ্ঠার সাথে দেশের জন্য এভাবে কাজ করে যাবারও আহবান জানান। এসময় ইলিয়াস কাঞ্চন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আমরা সবাই এই দেশের মানুষ- এই দেশ আমাদের সকলের। আমরা সবাই মিলে যেন দেশটাকে সুন্দরভাবে গড়ে তুলতে পারি আপনি দোয়া করবেন। এসময় দেশ ও জনগণের ভাগ্যোন্নয়নে এবং সকলের চলার পথ নিরাপদ করতে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহবান জানান প্রধানমন্ত্রী। সম্বর্ধনা অনুষ্ঠানে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী ও সাবেক রাষ্ট্রপতি অধ্যাপক ড. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরীও অংশ নেন।স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ও বীরশ্রেষ্ঠ খেতাবপ্রাপ্ত পরিবারের সদস্যরাও যোগদান করেন। মন্ত্রিসভার সদস্য, ডেপুটি স্পিকার, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা, বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত ও হাইকমিশনার, প্রধান নির্বাচন কমিশনার, প্রতিমন্ত্রী, সুপ্রিম কোর্টের বিচারক, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, সিনিয়র আইনজীবী, তিন বাহিনীর প্রধানগণ, সংসদ সদস্য, সিনিয়র রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সম্পাদক, সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ, উর্ধ্বতন বেসামরিক ও সামরিক কর্মকর্তা, শিক্ষাবিদ, ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ, শিল্পী ও বিশিষ্ট নাগরিকগণ সম্বর্ধনায় যোগ দেন। রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে কেক কাটেন এবং যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও অনুষ্ঠানে আগত সম্মানিত অতিথিদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। সংবর্ধনা অনুষ্ঠান শেষে দেশবরেণ্য শিল্পীদের পরিবেশনায় বিভিন্ন দেশাত্মবোধক গান পরিবেশনের মাধ্যমের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
Previous Page 1 2 3 4 5 ...............17 18 19 20 21 22 Next Page